চোট্ট মা

গত ১৭ই জুলাই ২০১১ সালের সকালটা মনে হয় একটু বেশী আলোকময় ছিল। বাতাসে এক মধুর সুর বাজছিল। মনে এক অজানা  আনন্দে ভরপুর ছিল।

ছোট ভাই ফোন করলো , আমাদের ঘর ( রায়হান ভাইয়ের প্রথম সন্তান) আলো করে এক স্বর্গের পরি এসেছে।

সবাই কাছে আমার এই ছোট্ট মা এর  জন্য দু’আ চাই।

আজ (৩১-১২-২০১১)কিছু  ছবি পেলামঃ

আপডেটঃ ( ০১-০৫-২০১২)

আপডেটঃ ( ২৮-০৬-২০১২)

আমায় ক্ষমা করো মা

মা, তোমার জন্মের যারা করে ছিল বিরোধিতা
তোমার জন্মটাকে যারা করেছিল বিলম্বিত
আজ তারা তোমার বুকে চালায় দামী দামী গাড়ি
যার চাকায় পিস্ট হয় তোমার কোমল দেহ
তোমাকে জন্ম দিতে যারা দিয়ে ছিল প্রান
আজ তাদের কে দেওয়া হল লাথি দিয়ে সম্মান
তারা চালায় তোমার দেশ, দেখে আমার লাগে বেশ
দেই হাত তালি, তাদের মুখে শুনি ধর্মের বুলি
দেই না এখন তাদের গালি, কারন তারাও বাঙ্গালী?

প্রতিদিন তোমাকে তারা করে বলৎকার
তোমার লাল সবুজ শাড়িকে খুলে করে নগ্ন
তোমাকে নিয়ে ধ্বংস খেলায় থাকে মগ্ন
আমরা তোমার সন্তান, হা হা আমরা তোমার সন্তান
আমার সামনে তোমাকে করে ধর্ষন,
তোমার সন্তানকে করে খুন, তবুও আমরা
হা হা হা আমরা তোমার সন্তান

ধিক্কার জানাতে পারি না আমি
জানাতে পারি না আমি প্রতিবাদ
বাচাতে পারি না আমি তোমায়
তোমার ঘরের কর্তারা দেয় তাদেরকে নিরাপত্তা
আর আমাকে দেয় হুমকি
আমি নিরুপায় মা, আমাকে ক্ষমা করো
তা না হলে আমায় অভিশাপ দাও
মরে যেন হয় যায় লাশ,
যেন মিলে না তোমার বুকে আমার ঠাই
তোমার মাটিতে আমার মতো কুলাঙ্গারের
হয় না যেন কবর, আমার লাশটা
দিয়ে দিয় ঐ সব শুকনদের হাতে
এটাই হবে আমার উপযুক্ত শাস্তি

[ কিছু দিন আগে প্রথম আলোতে একটা নিজউ পড়েছিলাম, তার পরিপ্রেক্ষিতে এটা লেখা। ]